দক্ষিণ আফ্রিকায় সিরিজ জিতল বাংলাদেশের মেয়েরা

দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে ইমার্জিং উইমেন সিরিজ ২-১ ব্যবধানে জিতেছে বাংলাদেশের নারীদের ইমার্জিং দল। আজ সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে ৯ উইকেটে জয় পেয়েছে বাংলাদেশের মেয়েরা।

শ্রীলঙ্কায় তামিম ইকবালরা ধুঁকছেন। আর দক্ষিণ আফ্রিকায় দুর্দান্ত খেলছেন নারী ক্রিকেটাররা। যদিও সেটি জাতীয় দল নয়। তবুও জয় তো জয়ই! তা বাংলাদেশ নাম নিয়ে যে দলই খেলুক। দক্ষিণ আফ্রিকায় ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতেছে বাংলাদেশ নারী ইমার্জিং দল। তাও আবার স্বাগতিকদের একেবারে উড়িয়ে। আজ প্রিটোরিয়ায় তৃতীয় আনঅফিশিয়াল ওয়ানডেতে ৯ উইকেটের জয় পেয়েছে নিগার সুলতানার দল।

দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে ইমার্জিং উইমেন সিরিজ ২-১ ব্যবধানে জিতেছে বাংলাদেশের নারীদের ইমার্জিং দল। আজ সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে ৯ উইকেটে জয় পেয়েছে বাংলাদেশের মেয়েরা।


শ্রীলঙ্কায় তামিম ইকবালরা ধুঁকছেন। আর দক্ষিণ আফ্রিকায় দুর্দান্ত খেলছেন নারী ক্রিকেটাররা। যদিও সেটি জাতীয় দল নয়। তবুও জয় তো জয়ই! তা বাংলাদেশ নাম নিয়ে যে দলই খেলুক। দক্ষিণ আফ্রিকায় ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতেছে বাংলাদেশ নারী ইমার্জিং দল। তাও আবার স্বাগতিকদের একেবারে উড়িয়ে। আজ প্রিটোরিয়ায় তৃতীয় আনঅফিশিয়াল ওয়ানডেতে ৯ উইকেটের জয় পেয়েছে নিগার সুলতানার দল।

সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে টস জিতে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় বাংলাদেশ। নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৭৬ রান তোলে স্বাগতিকেরা। এই লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে হেসে-খেলে জয়। ৩২ বল হাতে রেখে মাত্র ১ উইকেট হারিয়ে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়েন বাংলাদেশের মেয়েরা।

১৭৭ রানের লক্ষ্যটা ৪৪.৪ ওভারে পেরিয়ে যায় বাংলাদেশ ইমার্জিং দল। ওপেনার শারমিন আখতার ৮৩ ও অধিনায়ক নিগার ৪৮ রানে অপরাজিত ছিলেন। ১৩৭ বলের ইনিংসে শারমিন ১০টি চার মেরেছেন, নিগারের ৮৪ বলের ইনিংসে চার ৭টি। এর আগে উদ্বোধনী জুটিতে ৭৫ রান এনে দেওয়ার পর রানআউট হন অন্য ওপেনার মুরশিদা খাতুন (৩১)। এর আগে বাংলাদেশের লেগ স্পিনার ফাহিমা ৩২ রানে নিয়েছেন ৩ উইকেট। ২ উইকেট পেয়েছেন অফ স্পিনার খাদিজা তুল কুবরা।

অথচ প্রথম ম্যাচে হেরে সিরিজ শুরু করেছিল বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ম্যাচে সমতায় ফিরে সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে স্বাগতিকদের উড়িয়ে সিরিজ জয়। ৩১ জুলাই শুরু তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ।

লঙ্কাধোলাইয়ের শঙ্কায় তামিমেরা

তামিম ইকবাল ছটফট করছেন, হতাশ মুখে এদিকে-ওদিকে তাকাচ্ছেন। কখনো অসহায় দৃষ্টিতে তাকিয়ে আছেন শূন্যে। তিনি যেন দিক্ভ্রান্ত এক জাহাজের কাপ্তান—যিনি খুঁজে পাচ্ছেন না সমস্যা থেকে উত্তরণের পথ। 

পাবেন কী করে! কলম্বোর প্রেমাদাসায় সিরিজ বাঁচানোর ম্যাচে অন্য বাংলাদেশকে দেখা যায়নি। বরং তামিমের দলকে আরও ভঙুর মনে হয়েছে! সে ব্যাটিং কিংবা বোলিং—দুই বিভাগেই। অন্য দিকে শ্রীলঙ্কা ছন্দটা ভালোভাবে ধরে রেখেছে। এক ম্যাচ বাকি থাকতে লঙ্কানদের তাই সিরিজ জিততে সমস্যা হয়নি। বাংলাদেশকে আজ তারা হারিয়েছে ৭ উইকেটে।

২৩৮ রান ‘ডিফেন্ড’ করতে যে বোলিংটা দরকার ছিল, সেটি করতে পারেননি বাংলাদেশের বোলাররা। শ্রীলঙ্কান দুই ওপেনারকে ফেরাতেই ঘাম ছুটে গেছে বাংলাদেশ বোলারদের। তা ফেরানো গেলেও সর্বনাশ যা হওয়ার ততক্ষণে হয়ে গেছে। টপ অর্ডারদের দেখানো পথ ধরেই মিডল অর্ডার শ্রীলঙ্কাকে নিয়ে গেছে জয়ের প্রান্তে।

দিমুথ করুনারত্নকে (১৫) বোল্ড করে প্রথম ব্রেক থ্রু এনে দিয়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। কিন্তু ততক্ষণে শ্রীলঙ্কা তুলে ফেলেছে ৭১ রান। আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান কুশল পেরেরাকে নিয়ে আজ সেঞ্চুরির পথে এগোচ্ছিলেন অভিষ্কা ফার্নান্দো। সেটি অবশ্য পারেননি। মোস্তাফিজুর রহমানের বলে তামিম ইকবালের ক্যাচ হওয়ার আগে ফার্নান্দো করেছেন ৮২। কুশল-ফার্নান্দোর দ্বিতীয় উইকেট জুটি যোগ করে ৫৮ রান। তৃতীয় উইকেটে পেরেরা-মেন্ডিসের জুটি না জমলেও ম্যাথুস-মেন্ডেসির অবিচ্ছিন্ন চতুর্থ উইকেট জুটি ৯৬ রান যোগ করে শ্রীলঙ্কাকে এনে দিয়েছে দুর্দান্ত এক জয়। ম্যাথুস অপরাজিত ৫২ রানে। আর মেন্ডিস উইকেটে ছিলেন ৪১ রানে।

বাংলাদেশ বড় কোনো লক্ষ্য ছুড়ে দিতে পারেনি শ্রীলঙ্কার সামনে, মোস্তাফিজ-তাইজুলরা আর কী লড়বেন! অবশ্য তামিমদের ২৩৮ রানই হয় না যদি মুশফিকুর রহিমের কাছ থেকে অপরাজিত ৯৮ রানের ইনিংসটা না আসত। লড়াকু ইনিংস খেলা বাংলাদেশ দলের অভিজ্ঞ এই উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান পরে কিপিং করতে নামেননি। ড্রেসিংরুমে বসেই হতাশ মুখে দেখেছেন দলের হার। এই হারে বাংলাদেশ সিরিজ তো খুইয়েছেই। এখন ধবলধোলাইয়ের (পড়ুন ‘লঙ্কাধোলাই’) শঙ্কা!

দিনমজুরের মেয়েই এখন ক্রীড়াঙ্গনের বড় সম্পদ

নমিতা কর্মকারের বাবা দিনমজুরের কাজ করেন। মা চায়না কর্মকার বাসা বাড়িতে কাজ করেন। এই পরিবারের কিশোরী কন্যাই এখন খেলাধুলায় বাংলাদেশের বড় সম্পদ হয়ে উঠেছে। জাতীয় জুনিয়র অ্যাথলেটিকসে বর্শা নিক্ষেপে নতুন রেকর্ড গড়েছে সে। দারুণ ব্যাপার হচ্ছে, একজন হকি খেলোয়াড় হিসেবেও সে নিজেকে গড়ে তুলছে। নারী হকিতে ইতিহাসেই নাম লিখিয়েছে এই নমিতা। 

গত সেপ্টেম্বরে অনুষ্ঠিত ৩৪ তম জাতীয় জুনিয়র অ্যাথলেটিকস দিয়েই নমিতা পাদপ্রদীপের আলোয় আসে। বর্শা নিক্ষেপে আগের সব রেকর্ড ভেঙে ফেলে ৩৬ দশমিক ৩৬ মিটার দূরত্ব পার করে। সে প্রতিযোগিতার ডিসকাস থ্রো আর শটপুটেও নমিতা নিজেকে প্রমাণ করেছে। এই দুইয়ে সোনা জিততে না পারলেও দ্বিতীয় স্থান দখল করেছে নড়াইলের এই কিশোরী। তবে বর্শা নিক্ষেপের সাফল্য তাকে আলাদাভাবেই পরিচিতি দিয়েছে। 
নভেম্বর মাসেই নমিতা ইতিহাসের অংশ হয়ে যায় দেশের প্রথম নারীদের হকি দলের সদস্য হয়ে। সফরকারী ভারতের কলকাতা ওয়ারিয়র্সের বিপক্ষে বাংলাদেশের মেয়েদের সিরিজ জয়ে দারুণ ভূমিকা তার। নিজে গোল তো করেছেই, সতীর্থকে দিয়ে গোল করাতেও জুড়ি নেই নমিতার। ঢাকা একাদশের সেরা খেলোয়াড় ছিল সে। 
নমিতা নড়াইলের লোহাগড়া পাইলট উচ্চবিদ্যালয় থেকে এ বছর এসএসসি পরীক্ষা দেবে। লোহাগড়া পৌর শহরের কচুবাড়িয়ায় ওদের বাস। সাড়ে সাত শতাংশ জমির ওপর বসতভিটেটাই সম্বল। এখানে ছোট্ট দুটি ঝুপড়ি টিনের ঘর। অন্য কোনো জমিজমা নেই। নেই আর কোনো আয়। 
বাবা মাখন কর্মকারের বয়স প্রায় ৬০। কানে শোনেন না। এক চোখে দেখেন না। শরীরের নানা রোগ বাসা বেঁধেছে। ছিলেন কাঠুরে। এখন শক্ত পরিশ্রমের কাজ করতে পারেন না। তাই পানের বরজে কাজ করেন। কিন্তু কাজটি মৌসুমি। প্রায় ছয় মাস কাজ থাকে না। নভেম্বর থেকে কাজ নেই। তখন পরিবারের সদস্যদের নির্ভর করতে হয় নমিতার মায়ের সামান্য আয়ের ওপর। অবশ্য বছর দুই হলো জ্যাভলিন খেলোয়াড় হিসেবে বাংলাদেশ পাটকল করপোরেশনে (বিজেএমসি) যোগ দিয়েছেন নমিতা। বেতন সপ্তাহে ১ হাজার ৯০০ টাকা। এই টাকাটা সংসারে কাজে আসছে। 
মাখন কর্মকরের তৃতীয় সন্তান এই নমিতা। বড় দুই মেয়ের বিয়ে দিয়েছেন। এখন পাঁচজনের সংসার। ছোট মেয়ে প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা দিয়েছে। ছেলে দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়ে। 
নমিতা নিজেকে অনেক দূর নিয়ে যেতে হয়, ‘ছোটবেলা থেকেই ঝোঁক ছিল খেলাধুলায়। শুরু ফুটবল দিয়ে। অ্যাথলেটিকস হয়ে এখন হকিতে। আমি হকি নিয়েই এখন বেশি স্বপ্ন দেখি।’ দেশে একদিন হকিতে নারীদের জাতীয় দল হবে। সে দলে খেলতে চায় সে। নমিতা ক্রিকেটের মতো হকিতে বাংলাদেশকে নিয়ে যেতে চায় অন্য উচ্চতায়। 
খেলার হাতেখড়ি তাঁর বিদ্যালয়ের ক্রীড়া শিক্ষক দিলীপ চক্রবর্তীর কাছে। দিলীপ চক্রবর্তী বললেন, ‘হকিতে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা নেই। নিজের চেষ্টায় উঠছে নমিতা। নমিতাদের লালন করা গেলে হবে এ দেশের বড় সম্পদ।’ 
খেলায় এই সম্পদটিকে এখন আমাদের লালন করতে হবে অতি যত্নে। সে যত্ন কী নমিতা পাবে?

ফিলিপাইনকে গোলের মালা পরাল বাংলাদেশ

প্রথমবারের মতো ইনডোর এশিয়া কাপ হকিতে অংশগ্রহণ করছে বাংলাদেশ। প্রথম দুই ম্যাচে বড় হারের পর আজ ফিলিপাইনকে ৯-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ। টুর্নামেন্টটি অনুষ্ঠিত হচ্ছে থাইল্যান্ডে।

থাইল্যান্ডে অনুষ্ঠিত এশিয়ান ইনডোর হকিতে প্রথম দুই ম্যাচে মালয়েশিয়া ও ইরানের কাছে বড় ব্যবধানে হেরেছিল বাংলাদেশ। আজ সেই ঝালটাই বুঝি ফিলিপাইনের ওপর মিটিয়েছে বাংলাদেশ। নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে ফিলিপাইনকে ৯-০ গোলের বড় ব্যবধানে উড়িয়ে দিয়েছে রাসেল মাহমুদ জিমিরা।

প্রথমার্ধে বাংলাদেশ এগিয়ে ছিল ৬-০ গোলে। দ্বিতীয়ার্ধে করেছে আরও ৩ গোল। মইনুল ইসলাম কৌশিক করেছেন সর্বোচ্চ ৬টি গোল , দুইটি গোল করেছেন রাসেল মাহমুদ জিমি ও একটি আশরাফুল ইসলাম। ম্যাচের চতুর্থ ও পঞ্চম মিনিটে প্রথম দুটি গোল করেন কৌশিক। দুটিই ছিল ফিল্ড গোল। এরপর পেনাল্টি কর্নার থেকে তৃতীয় গোলটি করেন আশরাফুল। ১১ মিনিটে নিজের তৃতীয় ও দলীয় চতুর্থ গোলটি করেন কৌশিক। ১৭ মিনিটে রাসেল মাহমুদ জিমি করেন পঞ্চম গোল। এরপর ২০ ও ৩০ মিনিটে টানা দুই গোল করে স্কোর ৭-০ করেন কৌশিক। ৩৩ মিনিটে জিমি করেছেন অষ্টম গোল। আর ৩৬ মিনিটে ফিলিপাইনের কফিনে শেষ পেরেকটি ঠুকেছেন কৌশিক।

এই জয়ে পঞ্চম বা সপ্তম স্থান নির্ধারণী ম্যাচে খেলার সম্ভাবনা টিকে রইল বাংলাদেশের। আগামীকাল গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে স্বাগতিক থাইল্যান্ডের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ।

অংশ নেওয়া দুটি পরীক্ষায় ‘এ’ পেয়েছে ফেনীর নুসরাত

ফেনীর সোনাগাজীতে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করা মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি আলিম পরীক্ষায় অংশ নেওয়া দুটি পরীক্ষায় ‘এ’ গ্রেড পেয়েছেন। ওই দুটি পরীক্ষার পর আর পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেননি নুসরাত।

আজ বুধবার প্রকাশিত আলিম পরীক্ষার ফলে দেখা গেছে, কোরআন মাজিদ (বিষয় কোড ২০১) ও হাদিস (বিষয় কোড ২০২) পরীক্ষায় নুসরাত ‘এ’ গ্রেড পেয়েছেন। অন্য পরীক্ষাগুলোতে তাঁকে অকৃতকার্য দেখানো হয়েছে। এর কারণ তিনি ওই সব পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেননি। ৬ এপ্রিল সকালে আরবি প্রথম পত্রের পরীক্ষা দিতে মাদ্রাসায় এসে অধ্যক্ষ সিরাজ উদদৌলার অনুসারীদের আগুন সন্ত্রাসের শিকার হন নুসরাত।

ভর্তি পরীক্ষা পদ্ধতিতে ঢাবিকে অনুসরণ শাহজালালের

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পর এবার ভর্তি পরীক্ষা পদ্ধতিতে পরিবর্তন আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। এ বছর থেকে ভর্তি-ইচ্ছুক শিক্ষার্থীদের বহুনির্বাচনী প্রশ্ন (এমসিকিউ) ও লিখিত দুটি পরীক্ষাতেই অংশগ্রহণ করতে হবে বলে জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

এ ছাড়া প্রত্যেক বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মশালা ও সেমিনার করে নীতিমালা প্রণয়নের পর আগামী ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষ থেকে স্নাতক প্রথম বর্ষে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা নেওয়া হবে বলেও জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৫৬তম একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, বুধবার বিকেলে উপাচার্য ফরিদ উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে একাডেমিক কাউন্সিলের ১৫৬তম সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় চলতি বছরের স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষার বিষয়ে আলোচনা হয়। সভায় সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা নেওয়ার ব্যাপারেও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তবে সেটি আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকে কার্যকর হবে বলে এ বছর স্বতন্ত্রভাবেই ভর্তি পরীক্ষা নেবে বিশ্ববিদ্যালয়। ভর্তি পরীক্ষার তারিখ বিশ্ববিদ্যালয় পরিষদের আগামী সভায় চূড়ান্ত হবে।

পাঁচ বছর ধরে এগিয়ে ছাত্রীরা

এ বছরের উচ্চমাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) ও সমমানের পরীক্ষায় পাসের হারে ছাত্রদের তুলনায় ছাত্রীরা এগিয়ে। ফলাফলের তুলনামূলক বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, শুধু এ বছরই নয়, ২০১৫ সাল থেকে পাঁচ বছর ধরেই এই পরীক্ষায় ছাত্রীরা ধারাবাহিকভাবে ছাত্রদের চেয়ে বেশি পাস করছে।

এ বছর এই পরীক্ষায় ছাত্রীদের পাসের হার ৭৬ দশমিক ৪৪ শতাংশ। আর ছাত্রদের পাসের হার ৭১ দশমিক ৬৭ শতাংশ।

আজ বুধবার এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়। এতে মোট ১৩ লাখ ৩৬ হাজার ৬২৯ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেয়। এর মধ্যে পাস করেছে ৯ লাখ ৮৮ হাজার ১৭২ জন। গড় পাসের হার ৭৩ দশমিক ৯৩ শতাংশ। যা গতবার ছিল ৬৬ দশমিক ৬৪ শতাংশ। সকালে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে ফলাফলের তথ্য তুলে দেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনিসহ শিক্ষাবোর্ডগুলোর চেয়ারম্যানেরা। পরে দুপুরে সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে ফলাফলের তথ্য তুলে ধরেন শিক্ষামন্ত্রী। আর দুপুর একটায় স্ব স্ব কেন্দ্র ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এবং অনলাইনে ফলাফল একযোগে প্রকাশ করা হয়।

ফলাফলের তুলনামূলক বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, ২০১৫ সালে ৭০ দশমিক ২৩ শতাংশ ছাত্রী পাস করেছিল। তখন ছাত্রদের পাসের হার ছিল ৬৯ দশমিক শূন্য ৪ শতাংশ। পরের বছরে ছাত্রীদের পাসের হার হয় ৭৫ দশমিক ৬০ শতাংশ। ওই বছর ছাত্রদের পাসের হার হয় ৭৩ দশমিক ৯৩ শতাংশ। ২০১৭ সালে ছাত্রীদের পাসের হার ৭০ দশমিক ৪৩ শতাংশ এবং ছাত্রীদের পাসের হার ৬৭ দশমিক ৬১ শতাংশ। আর গেল বছর ছাত্রীদের পাসের হার হয় ৬৯ দশমিক ৭২ শতাংশ। তখন ছাত্রদের পাসের হার ছিল ৬৩ দশমিক ৮৮ শতাংশ।

আর এ বছর ছাত্রদের তুলনায় ছাত্রীদের পাসের হার ৪ দশমিক ৭৭ শতাংশ বেশি।

তবে ফলের সর্বোচ্চ সূচক জিপিএ-৫ পাওয়ার ক্ষেত্রে ছাত্রীদের চেয়ে ছাত্ররা এগিয়ে রয়েছেন। এবার ১০টি শিক্ষাবোর্ডে মোট জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৪৭ হাজার ২৮৬ জন। এর মধ্যে ছাত্র ২৪ হাজার ৫৭৬ জন। আর ছাত্রী ২২ হাজার ৭১০ জন।

নিখোঁজের ১৬ দিন পর শিশুর লাশ উদ্ধার

নিখোঁজের ১৬ দিন পর ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলায় শিশুর গলিত মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার পুরাপাড়া ইউনিয়নের মেহেরদিয়া এলাকা থেকে ওই মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।

শিশুর নাম আবু বক্কার খলিফা (৮)। তার বাবা পাচু খলিফা ও মা তাছলিমা বেগম। তারা পুরাপাড়া ইউনিয়নের মেহেরদিয়া গ্রামের বাসিন্দা। আবু বক্কর মেহেরদিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির ছাত্র ছিল। তার বাবা অটোরিকশা চালান।

আবু বক্করকে হত্যার ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে তারই চাচাত ভাই জিনদার খলিফা (২২) ও অটোবাইকের চালক মাহাবুব শেখ (২৫) নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জিনদার আবু বক্করকে হত্যার কথা স্বীকার করেন। এরপর তাঁর দেখানো জায়গা থেকে আবু বক্করের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

পুরান ঢাকায় ভবনের ছাদ ধস, একজনের লাশ শনাক্ত

পুরান ঢাকার পাটুয়াটুলী মোড়ে একটি পরিত্যক্ত একতলা ভবনের ছাদ ধসে পড়ার ঘটনায় একজনের লাশ শনাক্ত করেছে ফায়ার সার্ভিস। মঙ্গলবার গভীর রাতে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

একজনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে ঢাকা ডিভিশন ফায়ার সার্ভিসের উপপরিচালক দেবাশীষ বর্ধন বলেন, ‘আমরা একজনের লাশ শনাক্ত করতে পেরেছি। নিহতের নাম জাহিদুল ব্যাপারী (৬০)। তবে ধ্বংসস্তূপ সরিয়ে লাশ উদ্ধার করতে আরও সময় লাগবে। সারা রাত উদ্ধার কাজ চলবে।’ নিহত জাহিদুল ব্যাপারীর ছেলে নিখোঁজ আছে বলেও জানান দেবাশীষ বর্ধন।

এর আগে ফায়ার সার্ভিসের নিয়ন্ত্রণকক্ষে কর্তব্যরত মোহাম্মদ রাসেল জানান, গতকাল দিবাগত রাত দুইটার দিকে পরিত্যক্ত ভবনটির ছাদের একাংশ ধসে পড়ে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে যান। ভেতরে তল্লাশি চালিয়ে তাৎক্ষণিকভাবে ধ্বংসাবশেষের নিচে কাউকে পাননি তাঁরা।

কী দিয়ে হচ্ছে আইস ললি ও জুস?

র‍্যাব-১০ ও বিএসটিআইয়ের একটি দল আজ বুধবার নারায়ণগঞ্জের দুটি কারখানায় অভিযান চালিয়েছে। র‍্যাবের নির্বাহী হাকিম সারওয়ার আলমের নেতৃত্বে ফতুল্লার দেলপাড়ায় এই অভিযান চালানো হয়। কারখানা দুটির মধ্যে একটি প্রাইম ন্যাচারাল ফুড লিমিটেডের, এখানে শুধু ক্ষতিকারক রং ও রাসায়নিক পদার্থ দিয়ে তৈরি হয় ‘জুস’, ‘আইস ললি’সহ বিভিন্ন শিশুখাদ্য। অন্যটি ‘ইয়থ ল্যাবরেটরিজ লিমিটেড’ নামের আয়ুর্বেদিক ওষুধের কারখানা। এই কারখানায় যথাযথ নিয়মে ওষুধ তৈরি, সংরক্ষণ ও বাজারজাত না হওয়ার প্রমাণ পেয়েছে র‍্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। পণ্যগুলো জব্দ করে প্রাইম ন্যাচারাল ফুডকে ৩ লাখ এবং ইয়থ ল্যাবরেটরিজকে ৫ লাখ টাকা জরিমানা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।