২৫, জানুয়ারী, ২০২০, শনিবার

চট্টগ্রামের ছেলে ইয়ামিন পেলেন গুগলে চাকরি

চট্টগ্রামের ছেলে ইয়ামিন পেলেন গুগলে চাকরি

ভাইবার মেসেঞ্জারে ইন্টারভিউ। এরপর হাতে পেলো চাকরির নিয়োগপত্র। তাও বিশ্বের সর্ববৃহৎ সার্চ ইঞ্জিন ও প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান গুগলে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে।

তাতে হতবাক চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট) থেকে সদ্য পাস করা ইয়ামিন ইকবাল। নিয়োগপত্রে তাকে ২০২০ সালের ৩রা ফেব্রুয়ারির মধ্যে গুগলের তাইওয়ান অফিসে যোগ দিতে বলা হয়েছে।

গত মঙ্গলবার গুগলের এই নিয়োগপত্র হাতে পান বলে জানান চুয়েটের কমিপউটার কৌশল বিভাগের ১৪তম ব্যাচের (২০১৪-১৫ সেশন) শিক্ষার্থী ইয়ামিন ইকবাল।

চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে চুয়েট থেকে স্নাতক ডিগ্রি পাস করেন তিনি। তিন ভাইয়ের মধ্যে সবার বড় ইয়ামিন চট্টগ্রাম ক্যান্টনমেন্ট ইংলিশ স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করে ভর্তি হয়েছিলেন চুয়েটে। তার বাবা ব্যবসায়ী এবং মা গৃহিণী। থাকেন চট্টগ্রাম শহরে।

ইয়ামিন ইকবাল জানান, কমিপউটার ও প্রোগ্রামিংয়ের প্রতি বরাবরই আগ্রহ ছিল তার। মূলত এ কারণে ২০১৪ সালে তিনি বুয়েটের নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগে ভর্তির সুযোগ পেয়েও বেছে নেন চুয়েটের কমিপউটার কৌশল বিভাগ। এ বিভাগ থেকে পাস করার পর শখের ছলে গুগলে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে চাকরির আবেদন করেন তিনি।

আর তাতে সাড়া দিয়ে গুগল ভাইবার মেসেঞ্জারে ইন্টারভিউর আমন্ত্রণ জানায়। এতে সবকিছু ভালভাবে হলেও চাকরি হবে এমনটা বিশ্বাস করতে পারিনি। গত ২৬শে নভেম্বর নিয়োগপত্র হাতে পেয়ে আমি হতবাক।

পরে নিজেকে ফিরে পেয়ে বিশ্বাস করলাম চাকরি আমি পেয়েছি। চাকরি পাওয়ার ক্ষেত্রে গুগল কোন বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়েছে জানতে চাইলে ইয়ামিন ইকবাল বলেন, ভাইভারে তাৎক্ষণিকভাবে সঠিক উত্তর এবং সফলভাবে প্রোগ্রামিংয়ের সমস্যা সমাধানই তাঁর নিয়োগ পাওয়ার কারণ হতে পারে।

চুয়েটের ভিসি অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম বলেন, ইয়ামিন ইকবাল খুবই মেধাবী। নিজের যোগ্যতা বলেই সে গুগলে চাকরি পেয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় জীবনে সে বিভিন্ন প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতায় সফল হয়ে বিভিন্ন পুরস্কারও অর্জন করেছে। এ নিয়ে চুয়েটের দুজন শিক্ষার্থী সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে গুগলে চাকরির সুযোগ পেল বলে জানান তিনি।

ভাইবার মেসেঞ্জারে ইন্টারভিউ। এরপর হাতে পেলো চাকরির নিয়োগপত্র। তাও বিশ্বের সর্ববৃহৎ সার্চ ইঞ্জিন ও প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান গুগলে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে।

তাতে হতবাক চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট) থেকে সদ্য পাস করা ইয়ামিন ইকবাল। নিয়োগপত্রে তাকে ২০২০ সালের ৩রা ফেব্রুয়ারির মধ্যে গুগলের তাইওয়ান অফিসে যোগ দিতে বলা হয়েছে।

গত মঙ্গলবার গুগলের এই নিয়োগপত্র হাতে পান বলে জানান চুয়েটের কমিপউটার কৌশল বিভাগের ১৪তম ব্যাচের (২০১৪-১৫ সেশন) শিক্ষার্থী ইয়ামিন ইকবাল।

চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে চুয়েট থেকে স্নাতক ডিগ্রি পাস করেন তিনি। তিন ভাইয়ের মধ্যে সবার বড় ইয়ামিন চট্টগ্রাম ক্যান্টনমেন্ট ইংলিশ স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করে ভর্তি হয়েছিলেন চুয়েটে। তার বাবা ব্যবসায়ী এবং মা গৃহিণী। থাকেন চট্টগ্রাম শহরে।

ইয়ামিন ইকবাল জানান, কমিপউটার ও প্রোগ্রামিংয়ের প্রতি বরাবরই আগ্রহ ছিল তার। মূলত এ কারণে ২০১৪ সালে তিনি বুয়েটের নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগে ভর্তির সুযোগ পেয়েও বেছে নেন চুয়েটের কমিপউটার কৌশল বিভাগ। এ বিভাগ থেকে পাস করার পর শখের ছলে গুগলে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে চাকরির আবেদন করেন তিনি।

আর তাতে সাড়া দিয়ে গুগল ভাইবার মেসেঞ্জারে ইন্টারভিউর আমন্ত্রণ জানায়। এতে সবকিছু ভালভাবে হলেও চাকরি হবে এমনটা বিশ্বাস করতে পারিনি। গত ২৬শে নভেম্বর নিয়োগপত্র হাতে পেয়ে আমি হতবাক।

পরে নিজেকে ফিরে পেয়ে বিশ্বাস করলাম চাকরি আমি পেয়েছি। চাকরি পাওয়ার ক্ষেত্রে গুগল কোন বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়েছে জানতে চাইলে ইয়ামিন ইকবাল বলেন, ভাইভারে তাৎক্ষণিকভাবে সঠিক উত্তর এবং সফলভাবে প্রোগ্রামিংয়ের সমস্যা সমাধানই তাঁর নিয়োগ পাওয়ার কারণ হতে পারে।

চুয়েটের ভিসি অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম বলেন, ইয়ামিন ইকবাল খুবই মেধাবী। নিজের যোগ্যতা বলেই সে গুগলে চাকরি পেয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় জীবনে সে বিভিন্ন প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতায় সফল হয়ে বিভিন্ন পুরস্কারও অর্জন করেছে। এ নিয়ে চুয়েটের দুজন শিক্ষার্থী সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে গুগলে চাকরির সুযোগ পেল বলে জানান তিনি।

সর্বশেষ নিউজ